জীবন থেকে নেয়া ১ – শুরুটা হয় কিভাবে?

মহা বিশ্বের তুলনায় আমাদের জীবনটা খুবই স্বল্প সময়ের। সময় স্বল্প এবং কাজ অনেক 🙁 এই বাস্তবতায় ,আমরা কখনোই যথাযথভাবে সব কাজ সম্পন্ন করতে পারি না বা হয়ে উঠে না। তাই বলে কি আমাদের কাজ থেমে থাকবে? সময়ের এ স্বল্পতাকে মেনে নিয়েই আমাদের এগিয়ে যেতে হয়, মহাকালের স্মৃতিতে নিজেদের জায়গা করে নিতে হয়।

 

ডেনিস ম্যাকএলিস্টেয়ার রিচি,ভিন্টন গ্রে “ভিন্ট” সার্ফ,স্টিভ ওজনিয়াক,স্টিভ জব্স,বিল গেটস ,গুইডো ভ্যান রোসাম সহ আরো অনেক ব্যাক্তি কম্পিউটার জগতে স্বরনীয় হয়ে আছেন তাদের অকৃত্রিম ভালবাসার কাজ দ্বারা।

 

আজ থেকে কয়েক বছর আগে ২০০৬-০৭ সালের কথা কম্পিউটার জগতের এসব মানুষদের দ্বারা বিশেষ করে বিল গেটস পরে স্টিভ ওজনিয়াক,স্টিভ জব্স এর দ্বারা আমি সর্বোচ্চ মাত্রায় অণুপ্রানিত।সম্ভবত ২০০২-২০০৩ সালের দিকে কম্পিউটার যন্রটার সাথে আমার প্রথম পরিচয়।প্রথম পরিচয়ে প্রচন্ড রকম ভাল লাগা তারপর ভালবাসা।ভাল লাগা এবং ভালবাসা এই দুই অনুভূতির মাঝের সময়টা ছিল তীব্র আসক্তির সময় এবং তাকে নিয়ে সর্বক্ষন ভাবনার জগতে ডুবে থাকার সময়।

 

২০০৬-০৭ সাল প্রোগ্রামিং টার্মটার সাথে প্রথম পরিচয় হয়।প্রচন্ড রকম প্রোগ্রামিং শেখার ইচ্ছা।
কিন্তু নিজের কোন কম্পিউটার নাই।আছে একটা সিমেন্স সি৬৫ মোবাইল , স্পেসালিটি মোবাইলটাতে নেট ব্রাউজ করা যায় আর জাভা গেমস খেলা যায়। গেমস খেলতে আর ভালো লাগে না।গেমস বানানো দরকার কি করি, কার কাছে যাই।তখন নেট এত অ্যাভেইলেবল না সবে মাত্র গ্রামীনফোন ইন্টারনেট সার্ভিস দেওয়া শুরু করেছে। অনেক ঝামেলা সহ্য করে ইন্টারনেট সার্ভিস এনাবেল করলাম কারো কোন প্রকার সাহায্য ছাড়া কারন গ্রামীন ফোনের কাস্টমার কেয়ার এ গিয়েও কোন সলিউশন পাই নাই।
ইন্টারনেট টা পাওয়ার পর শেখা টা অনেক সহজ হয়ে গেলো। তখনো কিছু শেখা শুরু হয় নাই শুধু নেট সার্ফিং।নেট সাফিং করতে করতে ওয়েব ওয়ার্ল্ডটার সাথে এক ধরনের সখ্যতা গড়ে উঠল। তখন আগ্রহের লিস্টটা আস্তে আস্তে বড় হতে থাকল (গেইম বানানো,ওয়েব সাইট বানানো) আর টেকনোলজী ওয়ার্ল্ড এর বিভিন্ন টার্মগুলো ক্লিয়ার হতে থাকল। গুগল মারফত জানতে পারলাম ওয়েব সাইট বানানো হয় পিএইচপি,এইচটিএমএল,জাভা স্ক্রিপ্ট,সিএসএস দিয়ে।

বলে রাখা ভাল তার আগেই এক ভাইকে দিয়ে নিলক্ষেত থেকে হারভার্ড শিল্ড এর সি প্রোগ্রামিং এর বইটা কিনে রেখেছিলাম। ওইটা ওই দিনেই রিডিং পড়ে শেষ করে ফেলেছিলাম।সব মাথার উপর দিয়ে গেছে 🙂  খুব সম্তবত তিন মাস অনেক চেস্টা এবং চিন্তা ভাবনার পর প্রোগ্রামিং এর কনসেপ্টটা ক্লিয়ার হল।

w3school থেকে এইচটিএমএল, সিএসএস, জাভাস্ক্রিপ্ট, পিএইচপি একের পর এক শিখে ফেল্লাম। ওয়েব সাইট-ওয়াপ সাইট বানাতে থাকলাম যখন যা মন চায়।
সম্বল প্রচন্ড আগ্রহ আর একটা মোবাইল, শুরুটা এভাবেই……………………………………………………………………………………………………………………
আপনার শুরুটা কিভাবে হবে নির্ভর করছে আপনার আগ্রহের উপর।

কম্পিউটার ওয়ার্ল্ড এ আমার পরিচিত সেক্টরগুলো হচ্ছে:

১/ ওয়েব ডেভেলাপমেন্ট (ওয়েব ডিজাইন,ওয়েব এপ ডেভেলাপমেন্ট)
২/ ডেস্কটপ সফটওয়্যার ডেভেলাপমেন্ট (লিনাক্স,উইন্ডোজ,ম্যাকওসএক্স)
৩/ মোবাইল এন্ড হেন্ডহেল্ড ডিভাইস সফটওয়্যার ডেভেলাপমেন্ট (আইফোন,এন্ড্রয়েড,জেটুএমই,উইন্ডোজ ফোন)
৪/ কম্পিউটার সিকিউরিটি
৫/ গ্রাফিক্স ডিজাইনিং আন্ড অ্যানিমেশন
৬/ ডেস্কটপ গেইম ডেভেলাপমেন্ট
৭/ মোবাইল গেইম ডেভেলাপমেন্ট
৮/ সিস্টেম অ্যাডমিনিস্ট্রেটর
৯/ অ্যাডভান্সড ডিভাইস প্রোগ্রামিং

বর্তমানে বহুল আলোচিত প্রোগ্রামিং ল্যাংগুয়েজ সমূহ:
১/ সি/সি++
২/ জাভা
৩/ পিএইপি
৪/ পাইথন
৫/ রুবি
৬/ জাভা স্কিপ্ট
৭/ পার্ল
৮/ সি সার্প
৯/ অবজেক্টিব সি
১০/ ভিজুয়াল বেসিক
এগুলো সহ প্রায় ৬০০ এর মত প্রোগ্রামিং ল্যাংগুয়েজ আছে।এগুলো ছাড়াও আরো ১০০ এর মত স্পেসাল পারপাজ প্রোগ্রামিং ল্যাগুয়েজ আছে এই দুনিয়ায়।

এতগুলো ল্যাংগুয়েজ এর মধ্যে আপনি কোনটা বেছে নিবেন?
(আপনি যদি ওয়েব এপ্লিকেশন ডেভেলাপ করতে চান তাহলে আপনাকে অবশ্যই অবশ্যই এইচটিএমএল,সিএসএস জানতে হবে)

এই ধরনের পরিস্থিতিতে সিদ্ধান্ত নেয়া খুবই কঠিন।
তবে আপনি কিছু প্যারামিটারকে মাথায় রেখে খুব সহজেই সমাধান করতে পারেন:
১/ সহজে শেখা যায়
২/ প্লাটফর্মএর উপর নির্ভর করে না
৩/ মোবাইল এপস(গেইম + সফটওয়্যার) বানানো যায়
৪/ ডেস্কটপ এপস(গেইম + সফটওয়্যার) বানানো যায়
৫/ ওয়েব এপস বানানো যায়

** এ সব গুলো প্যারামিটার কে যদি একসাথে কোন ল্যাংগুয়েজ এ পেতে চাই তাহলে আমাদের অপশন কমে আসে। আর সেটা হল পাইথন।
** ২,৩,৪,৫ নাম্বার প্যারামিটার কে যদি পেতে চাই তাহলে পছন্দ করব জাভা
** ২,৩,৪ নাম্বার প্যারামিটা গুলো কে পেতে চাইলে বেস্ট অপশন হবে Qt(C++)
** শুধু ৫ নাম্বার প্যারামিটার কে পেতে চাইলে বেস্ট অপশন পিএইপি/পাইথন/জাভা (সাথে জাভাস্ক্রিপ্ট ইন্টারএকটিভ ইউজার ইন্টারফেস ডিজাইন করার জন্য)

এবার আপনিই পছন্দ করুন, আপনি কি করতে চান?
আরো বিস্তারিত অনেক কিছু লেখার ইচ্ছা ছিল।
অনেক সময় এর প্রয়োজন 🙁 ।

আমি পরবর্তীতে Qt5(C/C++)/Python দিয়ে সফটওয়্যার ডেভেলাপমেন্ট নিয়ে লিখবো।

 

কাউছার
Author: কাউছার

ভাবনার জগতে ডুবে থাকতে ভালবাসি 🙂

Permanent link to this article: https://www.borgomul.com/kawser/1552/


মন্তব্য করুন আপনার ফেসবুক প্রোফাইল ব্যবহার করে

3 comments

  1. অনেক ভালো লাগল পোস্ট। প্যারামিটার গুলো অনেক কাজে দেবে।
    পাইথনের ক্লাস গুলোর সাথে থাকব।

  2. ভাল লাগলো পড়ে সামনে টিউটোরিয়ালের অপেক্ষায় রইলাম অধীর আগ্রহ নিয়ে

  3. waiting for the rigor. go ahead.

মন্তব্য করুন

Discover more from বর্গমূল | Borgomul

Subscribe now to keep reading and get access to the full archive.

Continue reading